বুদ্ধের ফোন বরফ গলে, অশোক নির্বাচনী রাজনীতিতে ফিরলেন, বুদ্ধের ফোন বরফ গলল, অশোক নির্বাচনী রাজনীতিতে ফিরছেন

বুদ্ধের ফোন বরফ গলে, অশোক নির্বাচনী রাজনীতিতে ফিরলেন, বুদ্ধের ফোন বরফ গলল, অশোক নির্বাচনী রাজনীতিতে ফিরছেন

বুদ্ধ এক ফোনে কাজ করতেন?

শিলিগুড়ির প্রাক্তন মেয়র অশোক ভট্টাচার্য এক সময় নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ছিলেন। সেই বামপন্থী নেতা অশোক ভট্টাচার্য নির্বাচনী রাজনীতি থেকে দূরে সরে যাচ্ছিলেন। তবে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের একটি মাত্র ফোন কলকে মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনা হয়েছিল। আলিমুদ্দিন সূত্রে খবর, আগের মতোই অশোক লড়বেন ৭ নম্বর ওয়ার্ড থেকে

অশোক ভোট না দেওয়ার সিদ্ধান্ত!

অশোক ভোট না দেওয়ার সিদ্ধান্ত!

প্রথমে অবশ্য অশোক প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করার সিদ্ধান্ত নেন। যাইহোক, তিনি পরে তার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করেন “রাষ্ট্রীয় কমিটি আমাকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করতে বলেছিল,” তিনি সাংবাদিকদের বলেন। আমি ভোট না দেওয়ার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করেছি। বাকিটা আমার হাতে নেই, দল জানে। আসলে এই কঠিন পরিস্থিতিতে শিলিগুড়ির মানুষ চায় না আমি লড়াই থেকে দূরে চলে যাই। তাই এটা নিয়ে ভাবুন। ‘

একুশের বিধানসভায় নির্বাচনী লড়াইয়ে ছিলেন অশোকও!

একুশের বিধানসভায় নির্বাচনী লড়াইয়ে ছিলেন অশোকও!

একুশে বিধানসভা নির্বাচনেও লাল জার্সি পরে মাঠে নেমেছিলেন অশোক। তবে লাভ হয়নি। অশোক হেরে গেছে। যেন সম্প্রতি তার স্ত্রীর বিচ্ছেদ ঘটেছে। এ কারণে তিনি নির্বাচনে দাঁড়াতে চাননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি এ কথা বলেন কিন্তু রবিবার সকালে একটি ফোন কলে সবকিছু বদলে যায়। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য অশোকের ফোনে উঠলেন।

অশোকের কাছে বুদ্ধবাবুর ফোন!

অশোকের কাছে বুদ্ধবাবুর ফোন!

রবিবার সকালে বুদ্ধদেব অশোককে অনুরোধ করেছিলেন ভোটের লড়াই না দিতে। তিনি আগামী সাধারণ নির্বাচনে দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য আবেদনও করেছেন। বলাই বাহুল্য, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেননি অশোক। মঙ্গলবার অন্যান্য রাজ্য নির্বাচন নিয়ে বামেরা বৈঠকে বসে থাকায় অশোক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে রাজি হন। এখন শুধু প্রার্থী তালিকা প্রকাশের অপেক্ষা। বামপন্থী সমর্থকরা চেনিং ওয়ার্ডে আবারও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য অশোকের সন্ধানে রয়েছে।

প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণা

প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণা

সকালেই নির্বাচনে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন অশোক বাবু। দলকেও সেভাবে জানান তিনি। শিলিগুড়ি পৌরসভা ভোটে প্রার্থী হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হয়। দলের তরফে তাঁর ছয় নম্বর ওয়ার্ডে অশোক ভট্টাচার্যের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষণার পর তিনি বলেন, ‘আমি দাঁড়াতে চাইনি। কিন্তু দলের সিদ্ধান্ত ছাড়তে পারিনি। উল্লেখ্য, কলকাতার পাশাপাশি শিলিগুড়িতেও কংগ্রেস ছেড়ে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হয়।

Leave a Comment