বিজেপিতে সুকান্ত মজুমদার জেলা কমিটি ঘোষণার পর মতুয়া বিদ্রোহ, একের পর এক বিধায়ক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে চলে গেলেন, রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের জেলা কমিটি ঘোষণার পর বেশ কিছু মতুয়া বিজেপি বিধায়ক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়েছেন।

বিজেপিতে সুকান্ত মজুমদার জেলা কমিটি ঘোষণার পর মতুয়া বিদ্রোহ, একের পর এক বিধায়ক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে চলে গেলেন, রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের জেলা কমিটি ঘোষণার পর বেশ কিছু মতুয়া বিজেপি বিধায়ক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়েছেন।

5 বিধায়কের বিদ্রোহ

আজ বিকেলে রাজ্য সভাপতি সুকান্তর মজুমদারের তরফে জেলা সভাপতি ও ইনচার্জদের নাম ঘোষণা করা হয়। একদিকে যেমন সাংগঠনিক জেলার সংখ্যা ৩ বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে, একইভাবে ৩০ জন সভাপতি বদল করা হয়েছে। এর পরেই, বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার তিনজন বিধায়ক, বনগাঁ উত্তর থেকে অশোক কীর্তনিয়া, গাইঘাটা থেকে সুব্রত ঠাকুর এবং হরিণঘাটা থেকে অসীম সরকার, বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এছাড়াও রাঙ্গুট দক্ষিণের বিধায়ক মুকুটমণি অধিকারী এবং কল্যাণীর বিধায়ক আম্বিয়া রায়ও হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়েছেন।

মতুয়াদের প্রাধান্য না দেওয়ার অভিযোগ

মতুয়াদের প্রাধান্য না দেওয়ার অভিযোগ

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে যাওয়া পাঁচজন বিধায়কের মধ্যে কেউই কোনও প্রকাশ্য মন্তব্য করেননি, সূত্র জানিয়েছে, বিজেপির দায়িত্বে থাকা জেলা সভাপতিদের মধ্যে মতুয়াকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। অন্যদিকে, যাকে বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি করা হয়েছে তিনিও মতুয়া সম্প্রদায়ের নন। এছাড়া রাজ্য কমিটির গুরুত্বপূর্ণ পদে মতুয়াদের প্রতিনিধিত্ব ছিল না। যা দলের কিছু অংশের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।
প্রাসঙ্গিক উত্তর 24 পরগণায়, বনগাঁ সাংগঠনিক জেলায় বিজেপি সেরা করেছে। বনগাঁ লোকসভার স্বরূপনগর বাদে বাকি ছয়টি আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি। পরে অবশ্য বাগদাদের বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস তৃণমূলে যোগ দেন।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শান্তনু ঠাকুর

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শান্তনু ঠাকুর

এই বছরের শুরুর দিকে, মতুয়া সম্প্রদায়ের ভোট সংগ্রহ করতে এবং শান্তনু ঠাকুরের ক্ষোভ প্রশমিত করতে বিজেপি বনগাঁকে একটি পৃথক সাংগঠনিক জেলা হিসাবে ঘোষণা করেছিল। শান্তনু ঠাকুরের ঘনিষ্ঠ সহযোগী মনস্পতি দেবকে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়। তবে এবার তিনিও বর্তমান সভাপতি পরিবর্তনে ক্ষুব্ধ বলে সূত্র জানিয়েছে। জানা গেছে, এই বিষয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাদ্দারের কাছে অ্যাপয়েন্টমেন্ট চেয়েছেন কিমি।

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়েছেন আরও দুই নেতা

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়েছেন আরও দুই নেতা

এর আগে বিজেপির রাজ্য কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু ও কো-চেয়ারম্যান প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়। এ দিনই সায়ন্তন বসুর বাড়িতে পৌঁছেছেন তৃণমূল বিধায়ক সমীর চক্রবর্তী সহ আরও এক প্রভাবশালী বিধায়ক। সায়ন্তন বসু জানান, ব্যক্তিগত সম্পর্কের খাতিরে তারা এসেছেন। তার পরে অবশ্য বিজেপির রাজ্য কার্যালয়ের সামনে লাঠি হাতে পাহারা দিতে দেখা গেছে দলীয় কর্মীরা। শনিবার, কমিটি নিয়ে অসন্তোষের কারণে 5 বিধায়ক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে গেলে, রাজু ব্যানার্জি এবং শীলভদ্র দত্তের মতো নেতারা হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে চলে যান।

Leave a Comment