ফের বিস্ফোরক রূপা

ফেসবুক পোস্টে বিজেপির বিরুদ্ধে কথা বললেন রূপা গাঙ্গুলী ফেসবুক পোস্টে বিজেপির বিরুদ্ধে কথা বললেন রুপা গাঙ্গুলী

আবার বিস্ফোরক রূপা

ফের অসন্তোষ বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়। দিল্লি থেকে ফেইসবুক পোস্টে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে আগুন লেখেন। প্রাক-ভোটের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। রবিবার 19 ডিসেম্বর কলকাতা পৌরসভা নির্বাচন। এর আগে বাংলায় বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন তিনি। রূপা গঙ্গোপাধ্যায় তার ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘অনেক স্মৃতি ভিড়ে আসছে। 2015 সালের পৌর নির্বাচন নিয়ে অনেক কথা হচ্ছে। আমাকে তখন অনেক শারীরিক ও মানসিক কষ্ট সহ্য করতে হয়েছে। আজ আমি স্বীকার করছি, আমি হয়তো রাজনীতিবিদ নই। দল আমাকে তাড়া করতে পারে, আমাকে শো-কজ করতে পারে, আমাকে সাসপেন্ড করতে পারে, কিন্তু আমাকে জোর করে দল থেকে বের করে দিতে পারে না। ‘

তিস্তার পাশে আবার রূপা

তিস্তার পাশে আবার রূপা

এক ফেসবুক পোস্টে তিনি আবারও বিজেপি নেত্রী তিস্তা বিশ্বাসকে নিয়ে কথা বলেছেন। তিনি ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘আমার আর হোর্ডিং দেওয়ার ক্ষমতা নেই। থাকলে তোদের দুজনের ছবি টাঙিয়ে বলতাম আমি তোমাদের সাথে আছি। আমি থাকব. এর পর বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে সমস্ত ক্ষোভ উড়িয়ে দিয়ে এই পোস্ট করলেন তিনি। তিনি দাবি করেছেন যে রাজ্য পুলিশের সহায়তায় তিনি 30 থেকে 35 জন খুনি ও ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছেন। আর সেটা তিনি করেছিলেন ‘শান্ত ও ভদ্র আন্দোলন’ আন্দোলনের মাধ্যমে। তারপরে রূপা গঙ্গোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন যে বিজেপি তাকে তাড়াতে তড়িঘড়ি করেছে। রুপা দাবি করেন, তিস্তা বিশ্বাসকে হত্যা করা হয়েছে। তিস্তা বিশ্বাসের গাড়ি দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে তা তিনি মানতে রাজি হননি।

    নির্বাচনে হাইকোর্টের দ্বারস্থ বিজেপি

নির্বাচনে হাইকোর্টের দ্বারস্থ বিজেপি

প্রাক-নির্বাচন মামলায় একের পর এক ধাক্কা খাচ্ছে বিজেপি। গতকাল হাইকোর্ট প্রাক-নির্বাচন স্থগিত চেয়ে বিজেপির আবেদন খারিজ করে দিয়েছে। অর্থাৎ 19 ডিসেম্বর কলকাতা পুরসভার ভোট হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। উল্টো অমীমাংসিত প্রাক-ভোট যত দ্রুত সম্ভব শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। রাজ্য সরকার এবং নির্বাচন কমিশনকে 23 ডিসেম্বর বকেয়া তফসিল ঘোষণা করতে বলা হয়েছে। এবং যতটা সম্ভব বকেয়া ভোট দিতে বলা হয়েছে।
কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে মামলায় সংঘর্ষে জড়িয়েছে বিজেপিও। উপনির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবিতে আদালতে মামলা করেছিল বিজেপি। কিন্তু বৃহস্পতিবার হাইকোর্ট মামলায় কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি খারিজ করে দেয়। উল্টে রাজ্য পুলিশকে প্রাক-ভোট অনুষ্ঠানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দ্বন্দ্ব স্পষ্ট

দ্বন্দ্ব স্পষ্ট

উপনির্বাচনে প্রার্থী বাছাই নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। টাকা দিয়ে প্রার্থী বাছাই করার অভিযোগ উঠেছে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে। এমনকি প্রবীণ বিজেপি নেতা তথাগত রায়ও প্রকাশ্যে এই নিয়ে দলের বিরুদ্ধে তার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এবং একটি টুইটে লিখেছেন যে আপাতত বিদায় বঙ্গ বিজেপি। তখনই তাঁর বিজেপি ছাড়ার জল্পনা প্রকাশ্যে আসে। তবে ভোট নিয়ে মন্তব্য করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। আর বিজেপি ছাড়ার গুঞ্জনও উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি

Leave a Comment