Google Oneindia Bengali News

ফিরহাদ হাকিম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের শহর কলকাতা হতে চান কেএমসি মেয়র।

পশ্চিমবঙ্গ

oi-সঞ্জয় ঘোষাল

গুগল ওয়ানইন্ডিয়া বাংলা খবর

কলকাতাকে এ বার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের শহর করতে চাইছেন ফিরহাদ হাকিম। মঙ্গলবার মেয়রের শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে তিনি নতুন পথে এগোতে শুরু করেন। একই সঙ্গে তিনি বলেন, আমি কলকাতার প্রধান সেবক হতে চাই। তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেখানো পথে কলকাতার পথপ্রদর্শক হতে চান। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রত্যাশা পূরণ করতে চান।

কলকাতাকে মমতার স্বপ্নের শহর বানাতে চাওয়ায় ফিরহাদ নতুন পথে এগোতে শুরু করেন

টানা দ্বিতীয়বার কলকাতার মেয়র হলেন ফিরহাদ হাকিম। শপথের মধ্য দিয়ে তার দ্বিতীয় মেয়াদ শুরু হয়। একই সঙ্গে শপথ নেন ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ। পৌরসভার চেয়ারপার্সন হিসেবে শপথ নিয়েছেন মালা রায়, মেয়র পরিষদের সদস্য ও কাউন্সিলররাও শপথ নিয়েছেন। পৌরসভার লনে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। শপথবাক্য পাঠ করান প্রোটেম স্পিকার রাম পেয়ারি রাম।

এবার কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জিতেছে তৃণমূল। 144টি আসনের মধ্যে 134টি আসন পেয়েছে তৃণমূল। গতবারের থেকে ২০টি বেশি আসন নিয়ে কলকাতা পুরসভার নতুন বোর্ড গঠন করেছে তৃণমূল। ইতোমধ্যে দায়িত্ব ভাগাভাগি সম্পন্ন হয়েছে। এদিন তাদের শপথ অনুষ্ঠান।

শপথ পাঠের পর ফিরহাদ হাকিম বলেন, কলকাতায় আরও মানের নির্মাণ করা উচিত। আমি কলকাতার সেবক হতে চাই। কলকাতাকে বিশ্বের সেরা করতে হবে। এটা অবশ্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রত্যাশা পূরণ করবে। এটাই এখন চ্যালেঞ্জ। অনেক প্রত্যাশা নিয়ে এই পুরবোর্ড তৈরি করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার স্বপ্ন পূরণ করতে হবে। কলকাতার মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করতেই হবে।

ফিরহাদ বলেন, “আমরা কলকাতাকে বিশ্বের অন্যতম সেরা শহর হিসেবে গড়ে তোলার কাজ হাতে নিয়েছি।” সবাইকে নিয়েই এটা করতে হবে। কাউন্সিলরদের নিজ নিজ দায়িত্ব পালনের বার্তা দিলেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। সবাইকে বলুন আপনার ওয়ার্ডকে আদর্শ করার শপথ নিতে। তাহলে দেখবেন কলকাতার উন্নতি হয়েছে।

ফিরহাদের কথায়, আমরা এক দল। এই নতুন দল নিয়ে আমরা স্বপ্ন পূরণে নেমেছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশ্বাসকে সম্মান করতে হবে। এই শপথ নিয়ে আমরা হাঁটা শুরু করলাম। উল্লেখ্য, এদিন কলকাতা পুরসভার ৩৯তম মেয়র হিসেবে শপথ নিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম। ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বার কলকাতার মেয়র হওয়া ফিরহাদ বলেন, দেশবন্ধু-নেতাজির নখের যোগ্য হলেও নিজেকে ধন্য মনে করব।

কাউন্সিলরদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “মানুষ যদি সবার কাছ থেকে অনুরোধ করে, তাহলে সবার আগে হাজির হওয়া উচিত।” মানুষের সমস্যা সমাধানে অগ্রাধিকার দিতে হবে। মনে রাখবেন, কাউন্সিলররা তখনই সফল হয় যখন সবাই বলে যে তারা কল করলেই তারা এটি পেয়েছে। এই ট্যাগলাইনটিকে সর্বোত্তম বলে বর্ণনা করে তিনি বলেছিলেন যে কলকাতা পৌরসভায় হোয়াটসঅ্যাপে এই সমাধানটি লোকেদের সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে চালু করা হবে। মানুষ হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে যেকোনো সমস্যা জানাতে পারে। শীঘ্রই তার টোল ফ্রি নম্বর চালু করা হবে।

ইংরেজি সারাংশ

ফিরহাদ হাকিম চান, কলকাতা হবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের শহর কেএমসি মেয়র।

Leave a Comment