Google Oneindia Bengali News

প্রাক্তন বিচারপতি অসীম রায়কে সর্বসম্মতিক্রমে পশ্চিমবঙ্গের লোকায়ুক্ত পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গ

oi-সঞ্জয় ঘোষাল

গুগল ওয়ানইন্ডিয়া বাংলা খবর

বাংলায় নতুন লোকায়ুক্ত নিযুক্ত হন। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে লোকায়ুক্ত নিয়োগ করা হয়। সোমবার বিধানসভায় সরকার ও বিরোধী বিধায়করা নাম চূড়ান্ত করেন। সাবেক বিচারপতি অসীম রায়কে সর্বসম্মতিক্রমে লোকায়ুক্ত হিসেবে চূড়ান্ত করা হয়। এই নাম রাজ্যপালের কাছে পাঠানো হবে। তবেই আনুষ্ঠানিকভাবে লোকায়ুক্ত নিয়োগ করা হবে।

বাংলায় লোকায়ুক্ত নিয়োগ, বিধানসভায় সর্বসম্মতিক্রমে চূড়ান্ত হল প্রাক্তন বিচারপতির নাম

এদিন লোকায়ুক্ত হিসেবে প্রাক্তন বিচারপতি অসীম রায়ের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে এবং রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের নামও চূড়ান্ত করা হয়েছে। বিধানসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, লোকায়ুক্ত ও মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নিয়োগের বার্তা দেওয়া হয়েছে। সরকার ও বিরোধী বিধায়করা আলোচনায় নাম চূড়ান্ত করেন। যদিও এই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন বিরোধী দলের নেতা বিজেপি বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী।

বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন যে কমিটির চূড়ান্ত নামটিতে তাঁর সম্মতি দেওয়া রাজ্যপালের অধিকার। সংবিধানে তাই বলা আছে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নিয়ম মেনে লোকায়ুক্ত নিয়োগ করা হয়েছে। সেই নিয়ম মেনেই রাজ্যপালের কাছে ওই নাম পাঠানো হয়েছে।

এটি উল্লেখ করা প্রাসঙ্গিক যে বিধানসভায় লোকায়ুক্ত এবং মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নিয়োগকারী কমিটিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, বিরোধীদলীয় নেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং সংসদীয় মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। কিন্তু বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না বিরোধীদলীয় নেতা শুভেন্দু অধিকারী। ফলে লোকায়ুক্ত ও মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নিয়োগ নিয়ে গুঞ্জন ছড়াতে শুরু করেছে।

বিধানসভা সূত্রে জানা গেছে, শুভেন্দু অধিকারী 22শে ডিসেম্বর মুখ্যসচিবের কাছে একটি চিঠি লিখেছিলেন যাতে জানতে চান কে লোকায়ুক্ত এবং কে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ছিলেন। কিন্তু সরকার বলেনি। সেই কারণেই বৈঠকে অনুপস্থিত বিরোধী দল শুভেন্দু অধিকারী। ফলে নিয়োগ নিয়ে বিতর্ক চলতেই থাকবে।

শুধু শুভেন্দু অধিকারীই নন, অনুপস্থিত ছিলেন সংসদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। শশীর অসুস্থ থাকায় উপস্থিত হতে পারেননি। তবে তিনি কার্যত বৈঠকে যোগ দেন। তার মতো উপহার দেয়। এরপর সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়। বিধানসভায় রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়েও আলোচনা হয়।

বিধানসভার স্পিকারের সঙ্গে আলোচনার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, প্রত্যেকেরই নিজস্ব সীমানা রয়েছে। এই সীমানা মেনে চলতে হবে। গভর্নর সম্পর্কে আমাদের আর কিছু বলার নেই। তবে শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি। বিধানসভার স্পিকারের বাড়িতে এই বৈঠকে লোকায়ুক্তের নাম চূড়ান্ত হলেও বিতর্ক রয়েই গেল।

ইংরেজি সারাংশ

প্রাক্তন বিচারপতি অসীম রায়কে সর্বসম্মতিক্রমে পশ্চিমবঙ্গের লোকায়ুক্ত হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে

Leave a Comment