পশ্চিমবঙ্গে পশ্চিম বাতাস প্রবেশের কারণে শীতের মৌসুমে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

পশ্চিমবঙ্গে পশ্চিম বাতাস প্রবেশের কারণে শীতের মৌসুমে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা

দুই বাংলাতেই দুই ধরনের আবহাওয়া রয়েছে। একদিকে বিশ্রী শীতে তুষারপাত, অন্যদিকে শীতের কারণে বৃষ্টির হিম কমে যায়। বছরের শেষ দিকে হঠাৎ করেই উধাও হয়ে গেল কলকাতার বাজে শীত। উল্টে বৃষ্টির পূর্বাভাস নিয়ে নতুন বছরের আনন্দ মেলে না দক্ষিণবঙ্গের মানুষ। কারণ কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গের অন্যান্য জেলায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

একদিকে তুষারপাত, অন্যদিকে বৃষ্টি

একদিকে তুষারপাত, অন্যদিকে বৃষ্টি

সিকিমের চাঙ্গু এবং দার্জিলিংয়ের সান্দাকফুটেও তুষার পড়েছে। এই তুষারপাতের কারণে অনেক পর্যটক আটকা পড়েছেন। এ অবস্থায় উত্তরাঞ্চলে শীতের মজা অবারিত বলা যায়। আর দক্ষিণে পশ্চিমী বাতাসের সূত্রপাতের সঙ্গে সঙ্গে শীতের আমেজ চলছে। শীত হারিয়ে আবার বৃষ্টি আসছে। পৌষেও বৃষ্টির ভ্রুকুটি এখন কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গের মানুষের বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ঊর্ধ্বমুখী, আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস

সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ঊর্ধ্বমুখী, আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস

আলিপুর আবহাওয়া অফিস অনুসারে, সোমবার কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল 16.5 ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে 3 ডিগ্রি বেশি। হঠাৎ শীত চলে গেল এবং পশ্চিমী বাতাসে উষ্ণতা অনুভূত হল। মঙ্গলবার কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ১৬ ডিগ্রির কাছাকাছি। আগামী তিনদিন অর্থাৎ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কোনো পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই।

নববর্ষ ও নববর্ষে শীতের তেমন প্রভাব থাকবে না

নববর্ষ ও নববর্ষে শীতের তেমন প্রভাব থাকবে না

আবহাওয়া অফিস আরও জানিয়েছে, তিন দিন পর অর্থাৎ শুক্রবারের পর থেকে আবার ধীরে ধীরে তাপমাত্রা কমতে শুরু করবে। তবে নতুন বছর ও নববর্ষের আগমনে শীতের প্রভাব পড়বে না। নতুন বছর শুরুর পর আবারও শীতের ইনিংস শুরু হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা

কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা

আবহাওয়া অফিস শীতের পূর্বাভাস দিয়েই থেমে থাকেনি, মঙ্গল ও বুধবার কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে। তবে এটি বিক্ষিপ্ত আকারে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমাঞ্চলে তিন দিন বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।

বছর শেষ হওয়ার আগে তীব্র শীত পড়ার সম্ভাবনা নেই

বছর শেষ হওয়ার আগে তীব্র শীত পড়ার সম্ভাবনা নেই

উত্তরের বাতাস পশ্চিমী বাতাসের আগমনে বাধা দিয়েছে। বাংলায়ও ঢুকে পড়েছে পশ্চিমী ঝড়। যে কারণে উত্তর দিক থেকে আসা ঠাণ্ডা বাতাস বাধা পাচ্ছে। ফলে বাংলা থেকে শীত উধাও হয়ে গেছে। উত্তরের বাতাস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বুধ বেড়েছে। বছর শেষ হওয়ার আগে কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গে তীব্র শীতের সম্ভাবনা নেই।

উত্তরবঙ্গের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শীতের পারদ উত্তরে ব্যাটিং

উত্তরবঙ্গের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শীতের পারদ উত্তরে ব্যাটিং

কিন্তু উত্তরবঙ্গের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। উত্তর ভারতের সাথে তাল মিলিয়ে দার্জিলিং এর সান্দাকাফু এবং সিকিমের চাঙ্গুতেও তুষার পড়েছে। উত্তর জম্মু ও কাশ্মীর, উত্তরাখণ্ডের চামোলি এবং হিমাচল প্রদেশে ভারী তুষারপাতের খবর পাওয়া গেছে। আটকে পড়েছেন বহু পর্যটক, বিমুখ হচ্ছেন। ফলে উত্তরবঙ্গের উত্তরবঙ্গও শীতের পারদ ব্যাটিংয়ে তাল মিলিয়ে চলেছে।

Leave a Comment