দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন বিজেপি 4 থেকে 3-এ উঠে গেছে, কেএমসি নির্বাচনের ফলাফল: দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন বিজেপি 4 থেকে 3-তে উঠেছে

দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন বিজেপি 4 থেকে 3-এ উঠে গেছে, কেএমসি নির্বাচনের ফলাফল: দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন বিজেপি 4 থেকে 3-তে উঠেছে

দিলীপের ব্যাখ্যায় বিজেপির ফল

কলকাতা সিটি নির্বাচনে তৃণমূলের ভোট বেড়েছে ৭২ শতাংশ। আর বিজেপির ভোট কমেছে ৯ শতাংশ। রাষ্ট্রের শাসক ও প্রধান বিরোধী দলের মধ্যে বিরাট পার্থক্য রয়েছে। কলকাতায় বামপন্থীরা এগিয়ে। বিষয়টি ব্যাখ্যা করে বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি বলেন, “কলকাতায় বিজেপি চার নম্বরে ছিল, তারা তিন নম্বরে উঠেছে।” দিলীপ ঘোষ বলেছেন, কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে বিজেপি কখনও ভাল করতে পারেনি।

চাওয়া আর পাওয়ার মধ্যে অনেক পার্থক্য

চাওয়া আর পাওয়ার মধ্যে অনেক পার্থক্য

এবার বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির স্লোগান ছিল 200 পার। কিন্তু সেখানেই থমকে যায় বিজেপি। এরপর উপনির্বাচনে অনেকটা ক্ষমতা হারায় বিজেপি। লোকসভা এবং বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলের তুলনা করলে দেখা যাবে যে 2019 লোকসভায়, বিজেপি কলকাতা পৌরসভা এলাকায় 51 টি আসনে এগিয়ে ছিল। অন্যদিকে বিধানসভা নির্বাচনে মাত্র ১২টি আসন নিয়ে এগিয়ে ছিল তারা। একেবারে 3-সেখান থেকে।

পুলিশকে নয়, আদালতের ওপর আস্থা রাখুন

পুলিশকে নয়, আদালতের ওপর আস্থা রাখুন

এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, আদালতে বিজেপির আস্থা ছিল। তিনি পুনর্ব্যক্ত করেন যে গেরুয়া শিবির পুলিশের উপর নির্ভর করে না। দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, পুলিশের সামনেই জাল ভোট দেওয়া হয়। প্রাসঙ্গিক ভোটের আগে বিজেপি কলকাতা হাইকোর্টের একক বেঞ্চ থেকে ডিভিশন বেঞ্চ, তারপর সুপ্রিম কোর্টে যায়। সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার পর আর সময় ছিল না। আদালতে পুলিশের ওপর ভরসা রাখতে বলা হয়। কিন্তু সব বিরোধীরা পুলিশকে দলে দলে ভুয়া ভোটার নেওয়ার অভিযোগ করেছে। পুলিশ পরিচয়পত্র যাচাই করেনি। বিজেপি সহ অন্যান্য বিরোধী দলগুলি আদালতকে সিসিটিভির অধীনে ভোট দেওয়ার অভিযোগ করেছে, যা বেশিরভাগ জায়গায় কভার করা হয়েছিল বা অপ্রচলিত ছিল।

বিজেপির রাজ্য সভাপতিও ব্যাখ্যা দিয়েছেন

বিজেপির রাজ্য সভাপতিও ব্যাখ্যা দিয়েছেন

তবে রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকেও বিজেপির ফলাফল রক্ষা করতে দেখা গেছে। তিনি বলেন, হাওয়া ও কলকাতায় তৃণমূল শক্তিশালী। সেজন্য এ দুই জায়গায় আগের নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। জেলায় বিজেপি শক্তিশালী বলে দাবি করেন তিনি।

Leave a Comment