কলকাতা মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশন নির্বাচন 2021: হাইকোর্ট কেন্দ্রীয় বাহিনীর জন্য বিজেপির আবেদন খারিজ করেছে, কেএমসি নির্বাচন 2021: কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপর বিজেপির আবেদন কলকাতা হাইকোর্ট প্রত্যাখ্যান করেছে

কলকাতা মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশন নির্বাচন 2021: হাইকোর্ট কেন্দ্রীয় বাহিনীর জন্য বিজেপির আবেদন খারিজ করেছে, কেএমসি নির্বাচন 2021: কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপর বিজেপির আবেদন কলকাতা হাইকোর্ট প্রত্যাখ্যান করেছে

বিজেপির আবেদন খারিজ

আদালতে, বিজেপির আইনজীবী এসকে কাপুর অভিযোগ করেছেন যে রাজ্য নির্বাচন কমিশন তার সাংবিধানিক অধিকার রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে। তিনি অভিযোগ করেছেন যে প্রার্থীদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে এবং কলকাতা পুলিশ এবং রাজ্য নির্বাচন কমিশন নিরাপত্তা দিতে অক্ষম। যে কারণে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন সম্ভব হচ্ছে না। সেই কারণেই প্রশ্ন কেন্দ্রীয় বাহিনীর তরফে। এদিন আদালতকে জানানো হলেও কলকাতা পুলিশ ও রাজ্য নির্বাচন কমিশনের প্রশ্নে সন্তুষ্ট আদালত। আদালত মনে করেছিল যে শুধুমাত্র কলকাতা এবং রাজ্য পুলিশই নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সাহায্য করতে পারে। তাই এই মুহূর্তে কেন্দ্রীয় বাহিনীর কোনো প্রয়োজন নেই।

সব অভিযোগের তদন্ত হওয়া উচিত

সব অভিযোগের তদন্ত হওয়া উচিত

আদালত বলেছেন, নির্বাচন সংক্রান্ত সব অভিযোগ তদন্ত করতে হবে। আদালতের মতে, চারজন বিজেপি প্রার্থীর অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে এবং তাদের মধ্যে তিনজনের বক্তব্য প্রায় একই। আদালতের তরফে মন্তব্য করে বলা হয়েছে, সিপি অযৌক্তিক নয়। তার সব পরিকল্পনাই বাস্তবায়িত হবে বলে মনে করেন আদালত। এছাড়া ভোটের নিরাপত্তা নিয়ে ১৩ নভেম্বর রাজ্য নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ কমিশনারের বৈঠকে যে পরিকল্পনা করা হয়েছে, তা চূড়ান্ত বলে মনে করছে আদালত। প্রয়োজনে সিপি আবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরীক্ষা করবে। আদালত আরও বলেছে যে তারা এজি এবং কমিশনের উপর নির্ভর করছে।

নির্দেশিকা জারি করবে নির্বাচন কমিশন

নির্দেশিকা জারি করবে নির্বাচন কমিশন

116 নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপির প্রার্থী ভোটার হিসাবে কাজ করার জন্য বুথের নয়টি ওয়ার্ডের ভোটারদের অনুমতি চেয়ে আদালতে গিয়েছিলেন। এ প্রসঙ্গে বিচারপতি রাজশেখর মন্থা বলেন, 116 নম্বর ওয়ার্ডের পোলিং এজেন্ট কে হবেন তা নির্ধারণ করার পর নির্বাচন কমিশন ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নির্দেশিকা জারি করবে।

বুধবার একটি মামলায় ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি

বুধবার একটি মামলায় ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি

কলকাতার গণভোট নিয়ে বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে আরেকটি মামলায় সংঘর্ষে জড়িয়েছে বিজেপি। ভোট কারচুপির অভিযোগে স্থগিতাদেশ চেয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল বিজেপি। বুধবার সেই আবেদন খারিজ করে দেন আদালত। ফলে নির্বাচন প্রক্রিয়া আগের মতোই চলছে বলে জানিয়েছেন আদালত। এছাড়া বকেয়া দ্রুত পরিশোধের নির্দেশনাও দিয়েছেন আদালত। রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে 23 ডিসেম্বরের মধ্যে হাইকোর্টে এই বিষয়ে তাদের পরিকল্পনা জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

Leave a Comment