Google Oneindia Bengali News

কলকাতার ভোটে গেরুয়া শিবিরের ফল আরও খারাপ হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে রাজ্য নেতৃত্ব নিয়ে। এদিকে, নতুন রাজ্য কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে গেরুয়া শিবিরের অভ্যন্তরে বিদ্রোহ শুরু হয়েছে

পশ্চিমবঙ্গ

হাই-কৌসিক সিনহা

গুগল ওয়ানইন্ডিয়া বাংলা খবর

বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি জিততে না পারলেও। তবে কলকাতার ভোটে গেরুয়া শিবিরের ফল আরও খারাপ হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে রাজ্য নেতৃত্ব নিয়ে। এদিকে, নতুন রাজ্য কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে বিদ্রোহ শুরু হয়েছে।

বাংলায় ক্ষোভের ঝড় সামলাতে নাড্ডা!

এই পরিস্থিতিতে বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রাজ্যে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকি জানুয়ারিতে বাংলায় আসতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে এখনো কোনো নিশ্চিতকরণ পাওয়া যায়নি।

সোমবার, বিজেপির সর্বভারতীয় সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক বিএল সন্তোষ রাজ্যের বিজেপি নেতাদের সাথে একের পর এক বৈঠক করেছেন। আর সেই বৈঠক থেকেই জানা গিয়েছে, সংগঠন গড়তে তরুণদের ওপর জোর দিতে চান কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। সাংগঠনিক স্তরে সাম্প্রতিক রদবদলের পর বিজেপির অন্দরে তোলপাড় শুরু হয়েছে, যা ধীরে ধীরে প্রকাশ পাচ্ছে। এতে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে বলে মনে করছেন দিল্লির নেতারা।

সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছে গেরুয়া শিবির। এরই মধ্যে সোমবার চারটি পূর্ণাঙ্গের ভোটের তফসিল প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। তবে দলের অবস্থা ভালো নয় বুঝতেই সক্রিয় হয়ে উঠছেন শাহ-নাদ্দারা। দলের অভ্যন্তরে যে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে তাতে ভোট কতটা সুগম হবে তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। সম্ভবত সেটা বুঝতে পেরেই ব্যবস্থা নিচ্ছে বিজেপি।

বাংলায় এই মুহূর্তে দলকে শক্তিশালী করা সবচেয়ে জরুরি। তাই সক্রিয় হচ্ছে দিল্লি নেতৃত্ব। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে নতুন বছরের শুরুতে রাজ্যে আসছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। পরে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানুয়ারির শেষে রাজ্যে আসবেন। দলকে পুনরুজ্জীবিত করতে তারা বৈঠক করতে পারেন বলে সূত্র জানিয়েছে।

বিজেপি সূত্রে জানা গেছে, নাড্ডা 9 এবং 10 ডিসেম্বর দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে আসবেন। আসানসোল, বিধাননগর, চন্দননগর এবং শিলিগুড়িতে 22 জানুয়ারি প্রাক-নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। তার আগে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করবেন নাড্ডা। তিনি সব অভিযোগ শুনবেন।

অন্যদিকে, জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে রাজ্যে আসবেন অমিত শাহ। বিজেপি সূত্রে খবর, পরপর দুই ভোটে দলে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়েছে। রূপা গাঙ্গুলীর মতো নেতা ও সাংসদরাও প্রকাশ্যে রাজ্য বিজেপির বিরুদ্ধে তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। মতুয়াদের মধ্যেও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। নাড্ডা এতে অসন্তুষ্ট। তাই প্রয়োজনীয় কাজ সেরে বাংলায় ছুটছেন।

ইংরেজি সারাংশ

জানুয়ারিতে পশ্চিমবঙ্গে আসছেন অমিত শাহ ও জেপি নাড্ডা

Leave a Comment