Google Oneindia Bengali News

অস্বস্তি বাড়ছে মোদী সরকার। মিশনারিজ অফ চ্যারিটিসের অ্যাকাউন্ট জব্দ করার অভিযোগ।

পশ্চিমবঙ্গ

হাই-কৌসিক সিনহা

গুগল ওয়ানইন্ডিয়া বাংলা খবর

অস্বস্তি বাড়ছে মোদী সরকার। মিশনারিজ অফ চ্যারিটিসের অ্যাকাউন্ট জব্দ করার অভিযোগ। সব হিসাব বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আর এমন নির্দেশ দেওয়ার অভিযোগ কেন্দ্রের তরফে। এবং এটি সামনে আসার পরে, এটি কার্যত একটি টালমাটাল ব্যাপার ছিল। এমনকি রাজনৈতিক তোলপাড় শুরু হয়েছে।

ঘটনায় হতবাক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

এমনকী এই ঘটনায় হতবাক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এরই মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় এর তীব্র নিন্দা জানিয়ে একটি বার্তা দিয়েছেন তিনি।

তবে, কেন অ্যাকাউন্টগুলি বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল তা স্পষ্ট নয়। এ বিষয়ে কেন্দ্রের তরফে কোনও বার্তা জারি করা হয়নি। যদিও মিশনারিজ অফ চ্যারিটি এটি সম্পর্কে শুনেছে, তারা এখনও এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চায়নি। ফলে খবরের সত্যতা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে।

কিন্তু ক্রিসমাসের ঠিক পরেই কেন্দ্রের নির্দেশ বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। তবে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী সংগঠনটির বিরুদ্ধে ধর্মান্তরের অভিযোগ উঠেছে। তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। পদ ছাড়ার পর তিনি কী করবেন তা এই মুহূর্তে জানা যায়নি।

মিশনারিজ অফ চ্যারিটি তৈরি করেছিলেন মাদার থেরেসা। এই সংস্থাটি দরিদ্র মানুষের সেবায় কাজ করে। মানবতাই ধর্ম। আর ঈশ্বরকে পাওয়া যায় মানুষের সেবায়। মিশনারিজ অফ চ্যারিটি এই বিশ্বাস নিয়ে কাজ করে চলেছে। একেবারে বিনামূল্যে মানুষ চিকিৎসা থেকে শুরু করে শিশুদের লেখাপড়া, খাওয়া-দাওয়া সবই পায়। আর সেখানে দাঁড়িয়ে এই নির্দেশকে ঘিরেই তৈরি হয়েছে সব বিতর্ক।

জানা গিয়েছে, আপাতত সংস্থার সমস্ত অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। শুধু তাই নয়। সমস্ত অ্যাকাউন্টগুলিকে সমস্ত লেনদেন বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ফলে সমস্যায় পড়েছে মাদার তেরেসার সংগঠন। প্রায় ২২ হাজার রোগীর চিকিৎসার দায়িত্ব এই সংস্থার।

শুধু তাই নয়, এসব দাতব্য প্রতিষ্ঠানের অধীনে কাজ করেন অনেকে। ফলে তাদের বেতন আটকে যেতে পারে। এমনকি বিনামূল্যের ওষুধ ও খাবার বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আর এই খবর সামনে আসার পরই টুইট করেন মুখ্যমন্ত্রী। নির্যাতনের মাধ্যমে তার স্বীকারোক্তি আদায় করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও কর্মী ও রোগীদের অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপনের আবেদন জানানো হয়েছে। এছাড়া এই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সিপিএম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র।

ইংরেজি সারাংশ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইট করেছেন যে মিশনারি অফ চ্যারিটি অ্যাকাউন্ট কেন্দ্রীয় সরকার বন্ধ করে দিয়েছে

Leave a Comment